সময় এবং নদীর স্রোত কারো জন্যে অপেক্ষা করে না। এটা সত্যি।কিন্তু মানুষ নানান কাজে অন্য মানুষের জন্য অপেক্ষা করেন। কেউ অফিসের কাজে, কেউ ব্যক্তিগত কাজে, কেউ প্রেমের টানে। অপেক্ষা করা খুবই কষ্টের। বাস, ট্রেন, বিমান এসবের জন্যও আমরা অপেক্ষা করি। দশ মিনিটের জন্য অপেক্ষা করা যেন দশ দিনের মতই। যার জন্য আপনি অপেক্ষা করছেন তার প্রতি বিষিয়ে ওঠা অস্বাভাবিক নয়। অনিচ্ছা সত্ত্বেও আপনি অপেক্ষা করে যান। অনেক সময় রেগে গিয়ে আপনি ফিরেও যেতে পারেন। কিভাবে অপেক্ষা করছেন, কারন তা হতে পারে ৫ মিনিটের কিংবা ৫ ঘন্টারও। অনেকে আবার যুগযুগ অপেক্ষা করেন। আমরা সেসব অপেক্ষা নিয়ে আলাপ করবো না। সাময়িক ছোট ছোট অপেক্ষা গুলো কিভাবে আরো প্রোডাক্টিভ করা যায় সে নিয়ে আলাপ। তাই আসুন অপেক্ষা করার সময় কে কাজে লাগানোর উপায় বের করতে পারেন। আসুন কিভাবে অপেক্ষা করবেন তার সব উপায় খুঁজে বের করি।

বেশি সময় যেন অপেক্ষা করতে না হয় তার ব্যবস্থা করা

সবার শুরুতেই বলে নিই, অপেক্ষা শুরু হয় একটা নির্দিষ্ট সময় থেকে। যা আপনি এবং আপনার ক্লায়েন্ট দু’জনে মিলে ঠিক করেছেন। তাই সময় নির্দিষ্ট করার প্রতি কড়াকড়ি দিন। যখন সময় নির্ধারণ করছেন তখন বারবার  মনে করিয়ে দিন যে আপনি ঠিক সেই সময়েই আসবেন। তিনিও যেন একই সময়ে আসেন। আপনি খুবই পাংচুয়াল তা বারবার অপর পক্ষকে জানিয়ে দিন। জোর দিয়ে বললে তিনিও চেষ্টা করবেন নির্দিষ্ট সময়ে আসার। তাহলে আসুন জানি, কিভাবে অপেক্ষা করছেন?

কিভাবে ইনফো এ লিখুন লেখক হয়ে সবাইকে কিছু তথ্য জানান

লেখালেখি করে আপনি জিততে পারেন আকর্ষনীয় পুরষ্কার! বিস্তারিত দেখুন

কিভাবে অপেক্ষা করছেনঃ অপেক্ষা করার সময় হাতে অন্য কোন কাজ রাখুন

আমাদের দেশে এমন হতেই পারে যে নির্দিষ্ট সময়ে উপস্থিত হবার সব চেষ্টা করেও আপনার ক্লায়েন্টের দেরি হচ্ছে। সেই সময় দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হতে পারে। তাই আপনার হাতে কিছু ছোট বড় কাজ রাখুন যা আপনি অপেক্ষায় থেকেও সম্পন্ন করতে পারেন।অপেক্ষা করার স্থানে বসে বা দাঁড়িয়ে করা যায় এমন অনেক কাজই থাকে আমাদের জীবনে। খুঁজে খুঁজে কাজগুলো কোথাও ফোনের নোট প্যাডে লিখে রাখতে পারেন।

অন্য কোন ক্লায়েন্টকে একই স্থানে সাক্ষাৎ দিতে পারেন

একই সময়ে আরো কয়েকজন কে সাক্ষাৎ দিতে পারেন। এতে অপেক্ষায় থেকে আর খুব বেশি বিরক্তির শিকার হতে হবে না। একই সময়ে না হলেও সামান্য এদিকওদিক করে আপনি অন্যান্য সাক্ষাৎ নির্দিষ্ট করতে পারেন। এতে অপেক্ষা করার জন্য আর বেশি বিরক্ত হতে হবে না।

বই বা ম্যাগাজিন নিয়ে বের হোন

অপেক্ষা যখন অনেক দীর্ঘ হতে থাকে তখন হাতে বা ফোনে কোন বই থাকলে তা হতে পারে দারুন সুযোগ।  বই বা ম্যাগাজিন পড়ে সুন্দর সময় কেটে যেতে পারে। আপনি একটি বই পড়তে শুরু করলে সময় কেটে গেলেও টের পাবেন না। সেজন্য সাথে বই রাখা বুদ্ধিমানের কাজ। মনে রাখবেন, কিছু কিছু সময় এমন মানুষের জন্য অপেক্ষা করতে হয় যে ফিরে আসাও মুশকিল আবার ঘন্টার পর ঘন্টা দাঁড়িয়ে কিংবা বসে অপেক্ষা করতে হয়।

ফটোগ্রাফি চেষ্টা করতে পারেন

যারা ফটোগ্রাফার তাদেরকে বলতে হবে না। আশেপাশেই কোন একটা সাবজেক্ট বের করে নিয়ে তিনি ফটোগ্রাফি শুরু করে দিবেন। কিন্তু যাঁরা সেরকম ফটোগ্রাফার নন বা নবীন তাদের জন্য টিপস হচ্ছে আপনার হাতের ফোন দিয়েই ফটোগ্রাফি শুরু করুন। আশেপাশের যেকোন কিছুর ছবি তুলতে পারেন। হতে পারে সুন্দর কোন টেক্সার কিংবা রাস্তা বা গাছ পশু পাখি ইত্যাদি।

লেখার অভ্যাস থাকলে কোন ফিচার বা গল্প লিখে ফেলুন

অনেকেই ভাল লিখেন, তারা চাইলেই স্মার্ট ফোনে লিখতে শুরু করতে পারেন। লিখতে লিখতে আপনার সময় কেটে যাবে। আমি যদিও ভাল লিখি না, তবে এই লেখাটি আমি মোবাইল ফোনেই একটি অপেক্ষার সময়ে লিখেছি। তাই লেখাটিকে অভিজ্ঞতার বর্নণাও বলতে পারেন।

ভাল কোন আইডিয়া প্ল্যান করে ফেলুন

যেকোন একটা নতুন আইডিয়া খুঁজে বের করুন। আইডিয়া হতে পারে আপনার জীবন বদলে দেবার মত কিছু। অপেক্ষা করার সময় পর্যাপ্ত হাহুতাশ না করে নতুন নতুন আইডিয়া চিন্তা করা অনেক ভাল। অনেকেই এমন করেন। অনেক ভাল ভাল আইডিয়া এসেছে মানুষের অপেক্ষা করার সময়ে।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার ছক এঁকে ফেলুন

আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিএ ভাবুন। আর কী কী করা যেতে পারে, কী কী করার ছিলো। এখন কোন দিকে আছেন এসব নিয়ে কাজ করতে পারেন। কারো জন্যে অপেক্ষা করার সময় অন্য কোন নেগেটিভ চিন্তা না করে ভাল চিন্তায় সময় কাজে লাগাতে পারেন।

বন্ধু বা আত্মীয়কে ফোন দিয়ে কথা বলুন

কোন কিছুই করতে ইচ্ছে না হলে বন্ধু বা আত্মীয়দের ফোন দিতে পারেন। দীর্ঘদিন কথা হয় না এমন কোন ব্যক্তিকেও ফোন দিয়ে অবাক করে দিতে পারেন। সতর্কতাঃ তাঁকে ভুলেও বলবেন না এমনিই ফোন দিয়েছেন, কারো জন্য অপেক্ষা করছেন, সময় কাটছে না ইত্যাদি ইত্যাদি। তিনি নিশ্চয়ই আপনার কাছ থেকে এসব জানতেও চাইবেন না।

হারানো দিনের কোন স্মৃতি নিয়ে কাগজে বা ফোনের নোটে লিখতে পারেন

স্মৃতি আমাদের সবার জন্যই এক অন্যরকম অনুভূতি দেয়। তাই আপনি চাইলে আপনার অনেক স্মৃতি নিয়ে কল্পনা করতে পারেন। মনে পড়ে যেতে পারে খুবই দরকারী কিছুও। এমন হয়েছে যখন কোন একটা কাজ বা কথা ভুলে গেছেন অনেক দিন কিংবা বছর হয়ে গেছে, অথচ আজ স্মৃতি হাতড়ে সেটা পেয়ে গেলেন। তা কাগজে লিখে রাখুন। পরে সেটা সম্পন্ন করতে পারবেন। কারো জন্যে অপেক্ষা করার সময়টাকে কাজে লাগাতে চেষ্টা করুন।

আপনার ব্যক্তিগত খরচের হিসাব চেক করতে পারেন

আমাদের অনেক হিসাবনিকাশ থাকে, সেসব লিখে রাখলেও চেক করা হয় না। কারো জন্যে অপেক্ষা করার এই সময়ে আপনি তা চেক করে নিতে পারেন।

অন্য কারো সাথে মিটিং ফিক্সড করতে পারেন

কারো জন্যে অপেক্ষা করতে করতে হাঁফিয়ে ওঠার আগেই অন্য কারো সাথে ফোনে কাজ শুরু করে দিন। তাঁর সাথে মিটিং ফিক্সড করুন। পরবর্তী দিনের কিংবা অন্যান্য আনুসাঙ্গিক কাজের কথা শুরু করতে পারেন। মোট কথা এই সময়টা আপনি অপচয় না করে অন্য কারো জন্য ব্যয় করুন।

এছাড়াও আপনি নাশতা বা খাবার নিয়েও বের হতে পারেন, খেতেখেতে অন্য কিছু একটা করতে পারেন। এরকম আরো অনেক কাজ আছে যা আপনি চাইলেই এরকম নষ্ট হতে যাওয়া সময়ে করে ফেলতে পারেন।

আমার লেখায় কিছু বাদ পড়ে গেলে তা কমেন্ট করে জানান। পরবর্তীতে তা অন্যরা পড়ে বুঝতে পারবেন।

এরকম আরো তথ্য যুক্ত করতে আমাদের সাথে যোগ দিন

মন্তব্যসমূহ

জনপ্রিয় হচ্ছে

নিবন্ধন

লগিন করুন

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আমাদের সম্পর্কে

কিভাবে ইনফো - Kivabe Info

কিভাবে ডট ইনফো একটি বাংলা তথ্য শেয়ারিং সাইট। এএখানে আপনি নিজে যেমন জানতে পারবেন তেমনি চাইলে সবাইকে জানাতেও পারবেন।

সোশ্যাল মিডিয়া

যোগাযোগের জন্য

© কিভাবে ইনফো - Kivabe Info 2013-2021

Developed by: Sobshomoy.com

আপনি আমাদের সাথে একমত হয়ে এই ওয়েবসাইট ভিজিট করছেন, এর মানে আপনি আমাদের কুঁকি পলিসি গ্রহন করেছেন। পড়ুন প্রাইভেসি পলিসি . সব কুঁকি মেনে নিন