কিভাবে ইনফো এ লিখুন লেখক হয়ে যান

লেখালেখি করে আপনি জিততে পারেন আকর্ষনীয় পুরষ্কার! বিস্তারিত দেখুন

মোবাইল ফোনে ইনকামিং কল

যারা প্রতিদিন কমপক্ষে শ খানেক কল রিসিভ করেন তাদের অবস্থা সত্যিই খারাপ। আবার যারা কমপক্ষে ৫০ টি কল প্রতিদিন রিসিভ করেন তারাও ভাল আছেন বলা যায় না। তার কারন প্রতিটি মোবাইল ফোন কল হয়ত আপনার গড়ে প্রায় ৩ মিনিট করে সময় নেয়। এর জন্য সারা দিনে আপনার প্রায় ১৫০ থেকে ৩০০ মিনিট পর্যন্ত সময় ব্যয় হয়ে যায়। মোবাইল ফোনে যত বেশি কথা বলা হয় ততটাই মনোযোগ বিচ্ছিন্ন হবার মত ঘটনা ঘটে। এর জন্য মোবাইল ফোনে ইনকামিং কল ম্যানেজ করলে আপনার জীবনকে আরো সহজ করা যেতে পারে।

আসুন দেখি কিভাবে ইনকামিং বা আগত মোবাইল ফোন কল আপনি আরো বেশি দক্ষতার সাথে পরিচালনা করতে পারেন!

নিয়মিত চর্চা, ফোন কল এলে রিসিভ করুন

ফোনে যে কোন কল এলে তা রিসিভ করুন আর কথা যত দ্রুত সম্ভব আসল বক্তব্যে নিয়ে আসুন। বক্তব্য যেখান থেকেই শুরু হোক না কেন তা এদিকওদিক না ঘুরিয়ে যথাযথ মাত্রায় কানে নিতে পারলেই আপনি কী উত্তর দিবেন তাও পেয়ে যাবেন। যদি কোন কিছু পরে জানাবেন বলে থাকেন তখন তা নোট করে রাখুন গুগল কিপ বা অন্য যে কোন নোট বুকে লিখে রাখলে পরে কাজে লাগবে।

মিটিং এর সময় ফোন বন্ধ না করে শব্দহীন রাখতে পারেন, ভয়েস মেইল অপশন  সবচে ভাল উপায়

কোন মিটিং বা জরুরী আলোচনায় যেহেতু এক বা একাধিক ব্যক্তি সনশ্লিষ্ট থাকেন সেখানে আপনার একার জন্য অন্যদের বিরক্ত করা ঠিক নয়। তাই ফোন বন্ধ করে রাখা ঠিক নয়। শব্দহীন রাখতে পারেন। এ অবস্থায় কেউ কল করলে আপনি ডিফল্ট ফোন ম্যাসেজ সহ (Reject with message)কলটি কেটে দিতে পারেন। এক্ষেত্রে ওপাশের মানুষ আপনার সম্পর্কে একটা ধারনা পাবেন এবং মিটিং হওয়া নাগাদ অপেক্ষা করবেন নয়ত পালটা মেসেজে ঘটনার বর্ননা জানাতে পারবেন।

ভয়েস মেইলবক্স চালু করলেও কলার আপনাকে বার্তা প্রদান করতে পারেন। পরে আপনি বার্তাটি শুনে প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

এর জন্য দু’জনেরই সময়ের অপচয় কম হবে। অনেকেই হয়ত আমার সাথে একমত হবেন যে, কাউকে কলব্যাক করার পর দেখলেন যে তিনিও হয়ত আপনার কল গ্রহন করতে পারছেন না। তখন এসব করে সময় অপচয় ছাড়া আর কিছুই করার থাকে না। এরই মধ্যে যদি তথ্যটি একে অন্যের কাছে আদানপ্রদান হতে থাকে তখন ঘটনার একটা প্রাথমিক অবস্থা দাঁড়ায়।

কল ওয়েটিং সার্ভিস চালু করার আগে কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখুন, মোবাইল ফোনে কল ম্যানেজ করার ক্ষেত্রে সহজ হবে

কল ওয়েটিং সার্ভিসটি দরকারি অবশ্যই। কিন্তু এই সার্ভিস চালু করার আগে দেখুন আপনি কী কোন একটি কল চলা অবস্থায় অন্য নতুন কল নিতে পারবেন? যে আপনাকে কল করছেন তিনি হয়ত কল করার কিছুক্ষণ পরে বুঝতে পেরেছেন আপনি অন্য জায়গায় কথা বলছেন, তিনি অবস্থা বুঝে কল কেটে দিলেন। এদিকে আপনিও বর্তমান কল কেটে একই সময়ে ওই নতুন কলের সাথে সংযুক্ত হতে চাইলেন। পরিস্থিতি দেখুন!

এছাড়াও কোন একজন ক্লায়েন্ট এর সাথে জরুরী কলে আছেন, আপনার বস সেই কলের মধ্যেই ঢুকে গেলেন, এখন কাকে রেখে কাকে নেবেন? ভালভাবে কারো সাথে কথা বলার জন্য কল ওয়েটিং সার্ভিস বন্ধ রাখুন।ভাল এবং দক্ষ মোবাইল ফোনে ইনকামিং কল ব্যবস্থায় অবশ্যই এই দিকটা মাথায় রাখতে হবে।

যখন কাউকে অপ্রয়োজনীয় কিংবা কম সিরিয়াস বিষয়ে কোন কথা বলছেন তখন এই সার্ভিসটি চালু রাখা যেতে পারে।

কল ওয়েটিং চালু না রেখে মিসডকল এলার্ট নিতে পারেন।  যখন ব্যস্ত থাকবে তখন একটা এসএমএস নোটিফিকেশন আসবে। পরে তাকে কল করে জেনে নিতে পারেন।

হেডফোন ব্যবহার করতে পারেন। এতে অনেকের সাথে স্ক্রীনে টেক্সট আদানপ্রদান করে আবার একজনকে ফোকাস করে ফোনে কথা বলতে পারবেন।

আশাকরছি এ পর্যন্ত বলা কথাগুলো আপনাকে কিছুটা ধারনা দিয়েছে, কিভাবে আরো দক্ষতায় মোবাইল ফোন কল ব্যাবস্থাপনা করা যায়? কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করুন। মোবাইল ফোনে ইনকামিং কল ম্যানেজ করতে পারলে আপনি অন্যকেও সাহায্য করতে পারবেন।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ভেরিফাই করুন--- *