কিভাবে ইনফো এ লিখুন লেখক হয়ে যান

লেখালেখি করে আপনি জিততে পারেন আকর্ষনীয় পুরষ্কার! বিস্তারিত দেখুন

ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়া

মানুষের সম্পর্ক হয় চির দিনের জন্য। আজীবন সম্পর্কিত থাকার জন্য মানুষের কোন বিকল্প নেই। অন্যান্য প্রানীর চেয়ে মানুষের মধ্যেই বেশিরভাগ সম্পর্কের জোরালো প্রবনতা আছে। বাবা মা, ভাই বোন আর আত্মীয়স্বজন ছাড়াও নানান সম্পর্কের ঘেরে বসবাস আমাদের। আছে বন্ধু, প্রেমিক প্রেমিকা আরো কত কী? এত সব সম্পর্ক মানুষের মধ্যে বিধ্যমান থাকার পরেও সম্পর্ক ভেংগে যাওয়ার প্রবনতাও খেয়াল করার মত। বেশিরভাগ সম্পর্ক ভেংগে যায় প্রেমিক প্রেমিকার, বন্ধু বান্ধবের। কিন্তু এর মধ্যেও আছে আত্মীয়স্বজনের মধ্যে সম্পর্ক ভাংগার ঘটনা। আরো খুঁজতে গেলেই পাওয়া যায় ভাই বোন, মা বাবার সাথেও সম্পর্ক ভেংগে যাওয়ার মত ভয়ভহ রকমের ঘটনা। অনেকেই সন্তানকে ত্যাজ্য করে ভুলে যাবার চেষ্টা করেন। তাই আজ চলুন কিছু স্বাভাবিক উপায়ে খেয়াল করি কিভাবে ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়া যায়? মানুষের জীবনের ক্রান্তি কালে এ সমস্যাটা অনেক বেশি দীর্ঘস্থায়ী হয়। কিছু সম্পর্ক আর কখনোই রিকভার করা যায় না।

 

ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়াঃ ভেংগে যাওয়ার কারন নির্দিষ্ট করুন

বেশির ভাগ সম্পর্কই অল্প কিছু কারনে ভেংগে যায়। এর জন্য দ্বায়ী থাকে দু’টি কিংবা একটি অথবা ভুল বোঝাবুজি। তাই এতদিন পর্যন্ত যদি কারন বের করতে না পারেন, এখন আবার চেষ্টা করুন সম্পর্ক ভেংগে যাওয়ার কারন কী ছিলো? এক সময় অন্যান্য মানুষের সহযোগীতায় কিংবা নানান ভাবে তথ্য খুঁজতে থাকলে অজানা রহস্যও বের হয়ে আসে। আর রাগ কিংবা হিংসা হলেও তা জানতে পারা যায়। তাই জেনে নিন কী বড় সমস্যা ছিলো আপনাদের সাথে সম্পর্ক ভেংগে যাওয়ার? অনেক সময় অনেক সময় টাকা ধার দেওয়া কিংবা সন্দেহ হতে পারে একটা সম্পর্ক ভেংগে যাওয়ার কারন। তাই সম্পর্ক ভেংগে যাওয়ার কারন বের করা খুবই জরুরী।

ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়াঃ ভেংগে যাওয়ার পরে দু’পক্ষের কার্যবিধি পর্যবেক্ষন করুন

সম্পর্ক ভেংগে গিয়েও অনেকে স্থির নন। শত্রু শত্রু খেলায় মেতে ওঠেন। খুবই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থেকেও খুব ভয়াবহ শত্রুতার প্রমান আছে। আমাদের সমাজে এর অনেক নজির পাওয়া যায়। এর প্রধান কারন হতে পারে রাগ, ক্ষোভ কিংবা ক্ষতি। এক পক্ষের দ্বারা যদি অন্য পক্ষের কোন ক্ষতি কখনো হয়ে যায় তবেই যত ঘটে যায় সম্পর্ক ভাংগা। তবে সেসব ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক যে জোড়া লাগে না তা কিন্তু নয়। আস্তে আস্তে হলেও তার একদিন সুরাহা হয়। বংশীয় শত্রুতার একদিন নিস্পত্তি হয়। তার জন্য দরকার সম্পর্ক ভাংগার পরের অবস্থা লক্ষ্য করা। যদি শত্রুতা থাকে তবে একধরনের চেষ্টা করতে হয়। যদি শত্রুতা না শুরু হয় তবে অন্যভাবে শুরু করা যায়।

ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়াঃ চেষ্টা করে দেখুন কোন আবেগ দিয়ে কিছু হয় কি না

মানুষের আবেগ খুব স্পর্শকাতর। একে ছোঁয়া যায় না ঠিকই তবে একে নিয়ে অনেক কাজ করা যায়। কে কেমন আবেগে ভাসেন তা জানতে পারা জরুরী। অনেক বড় সন্ত্রাসী দেখবেন কখনো সামান্য পথিককে নিয়ে নানান সেবায় ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। এসব করে কারন মানুষ মাত্রই আবেগ প্রবন। মানুষের রয়েছে আবেগের ঝুড়ি। এখান থেকে কিছু একটা বের করুন। কাজ শুরু করার আগেই আইডিয়া পেয়ে যাবেন। আবেগের উপর দিয়ে আবার শুরু করুন নিজের চলার পথ। ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়া যাবে আশা করছি। তবে আবারো নিজেকে প্রমান করুন আপন কারো ক্ষতি করবেন না। তাহলেই সমস্যা থেকে মুক্তি।

ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়া

ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক গড়াঃ ভুল স্বীকার করুন

যে কোন একজনের ভুলের জন্যও সম্পর্ক ভেংগে যায়। আবার দু’জনেরই কিছু না কিছু ভুল থাকে। ভুল দু’জনেরই থাকুক আর একজনেরই থাকুক আপনিই প্রথমে ভুল স্বীকারের প্রস্তাব নিয়ে যান। পরিষ্কার করে বলুন, আপনি ভুল করেছেন। সেই ভুলের জন্য অন্য পক্ষ হয়ত জমে থাকা রাগ ক্ষোভ নিয়ে এতদিন একটা যন্ত্রনায় আছেন। তিনি নতুন প্রস্তাব শুনে সব রাগ ক্ষোভ ভুলে যাবেন। এরকম অনেকের ক্ষেত্রেই হয়েছে। আপনিও চেষ্টা করুন।

সম্পর্ককে নতুন আরো কোন সম্পর্ক দিয়ে গড়তে পারেন

মানুষের কত রকমের সম্পর্ক থাকে। ব্যবসায়ীক সম্পর্ক, প্রাতিষ্ঠানিক সম্পর্ক, সামাজিক সম্পর্ক। যা যে কোন সময়ে যখন তখন গড়ে উঠতে পারে। ক্লাব কিংবা সামাজিক যোগাযোগ কিংবা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অথবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এসব জায়গায় আবারো জীবন পথের সাথে রেখা টানুন। মিলিয়ে নিন আগের ভেংগে যাওয়া সম্পর্ক। এ সম্পর্ক ফিরে পাওয়াটাই আসল। ব্যক্তিগত জীবনের চেয়ে সবার সাথে বেঁচে থাকার দারুন স্বাদ উপভোগ করুন।

 

আগেও বলেছি, সব সম্পর্ক ভেংগে যাবার পর গড়া সহজ হয় না। কিছু সম্পর্কই আছে আর কখনোই পূনঃরুদ্ধার করা যায় না। চেষ্টা করে যান। যদি সদিচ্ছা থাকে আর চেষ্টা ব্যতিক্রমী হয় হয়ত সেই সম্পর্কও ফিরে পেতে পারেন।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ভেরিফাই করুন--- *