790-x-90

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

ভালো মানের সিভি তৈরী

ভালো মানের সিভি তৈরী করা চাকুরির ক্ষেত্রে একটি  গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা নিতে পারে।  কেননা আপনি সিভি তৈরী যতটা আধুনীক, ঝরঝরে আর পরিষ্কার কিংবা পছন্দনীয় করে তুলতে  পারবেন , ততটাই চাকুরির ক্ষেত্রে উপকৃত হবেন । কিন্তু আমরা অনেক সময় দেখি চাকুরীপ্রার্থীরা তাদের জীবনবৃত্তান্ত সুন্দর এবং সঠিকভাবে তৈরী করার ব্যপারে গুরুত্ব প্রদান করে না । তারপর চাকুরি খুঁজতে খুঁজতে হয়রানি হয়ে এক রকম বিরক্ত বোধ করে ।আর এর ফলশ্রুতিতে অনেক যোগ্য প্রার্থীকেই  ইন্টারভিউ পর্যন্ত ডাকা হয় না । এবং এতে  সে তার যোগ্যতা প্রমানের সুযোগ হারায় । যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও চাকুরী না পেয়ে বেকার থাকতে হয়। কিন্তু আমি এখন আপনাদের মাঝে  একটি ভালো মানের সিভি লেখার পদ্ধতি তুলে ধরবো —–

১. লেখার মাধ্যম, হাতে বা কম্পিউটার টাইপ দিয়ে হতে পারে ভালো মানের সিভি তৈরীঃ

আজকের দিনে যেহেতু বেশির ভাগই প্রতিষ্ঠানে ইমেলের মাধ্যমে সিভি জমা নেওয়া হয়, সেহেতু কম্পিউটার টাইপের মাধ্যমেই একটি ভালো মানের সিভি তৈরি করতে হবে । হাতে লেখা সিভি আজকাল কোন মতেই গ্রহনীয় হয় না। কম্পিউটারের যে কোন টেক্সট এডিটরে না লিখে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড বা গুগল ডকস এ লিখতে পারেন। আর এর জন্য আপনি  ফন্ট হিসাবে calibri , vrinda পছন্দ করতে পারেন। এভাবেই একটি ভালো মানের সিভি তৈরি করতে পারবেন ।

২.বানান ও সঠিক ভাষার ব্যবহারঃ

আপনাকে অবশ্যই  মনে  রাখতে হবে যে , আপনার জীবনবৃত্তান্তের মধ্যে যদি কোন বানান ভুল বা ভাষাগত(Grammatical) ভুল থাকে তবে সম্ভাব্য চাকুরীদাতার আপনার সম্বন্ধে এই  ধারণায় উপনীত হবেন যে আপনি কোন কাজই নির্ভুল ভাবে করতে সক্ষম নন ৷ সুতরাং একটি CV তৈরীর পর সেটি নিজে ভাল করে যাচাই করুন। কাউকে দিয়ে বানান বা ভাষাগত ত্রুটি রিভিউ করিয়ে নিতে পারেন।

৩. মোট দৈর্ঘ্য বা ভালো মানের সিভি তৈরী তে যতটুকু লিখবেনঃ

একজন চাকুরি দাতা যেহেতু একটি সিভি পড়ার জন্য গড়ে ৩০ – ৪০ সেকেন্ডের বেশি সময় পায় না । সুতারাং সিভি লেখের সময় অপ্রয়োজনীয় লেখা বাদ দিতে হবে । এবং মনে রাখবেন তা যেন দুই পাতার বেশী  কোন ভাবেই না হয়। গুরুত্বপূর্ন টপিক লিখুন, আর সংক্ষেপে যতটা পারেন তুলে ধরুন। অপ্রাসংগিক সব কিছু বাদ দিন।

৪. মিথ্যা তথ্য না দেয়া বা কিছু গোপন করা থেকে বিরত থাকাঃ

কোন প্রকার মিথ্যা তথ্য সিভিতে লিখতে যাবেন না । এর ফলে চাকুরি চলে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে ।তাই সিভি লেখার সময় অবশ্যই মিথ্যাকে পরিহার করতে হবে ।

৫. প্রত্যেক ইন্টারভিউ এ একই সিভি ব্যবহার না করা:

প্রত্যেক চাকুরির জন্য একই সিভি ব্যবহার করা যাবে না । চাকুরির বিজ্ঞাপন  অনুযায়ী ভালো মানের  সিভি  তৈরী  করতে হবে । তাই ভিন্ন ভিন্ন চাকুরির জন্য আপনার সিভিটিকে মডিফাই  করুন ।

৬. প্রয়োজনীয় তথ্য দিনঃ

চাকুরি দাতাকে সন্তুষ্ট করার আশা নিয়ে আমরা অনেকেই নিজেদের ব্যাপারে সমস্ত রকমের তথ্য সিভিতে দিয়ে থাকি। কিন্তু এভাবে কাজ হয়না। নিজের ব্যাপারে বিস্তারিতভাবে অনেকগুলো তথ্য দিলেই আপনার চাকরী নিশ্চিত হবে না। বরং সেগুলো নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষকে আপনার ব্যাপারে অনাগ্রহী করে তোলে। তাই শুধু সেসব তথ্যই যোগ করুন যেগুলো আপনার ভবিষ্যৎ চাকরিদাতা কোম্পানির কাজে আসতে পারে এবং তারা যেন উক্ত পদের প্রার্থী হিসাবে যোগ্য মনে করে ।

এতক্ষণ আমরা কিভাবে উন্নত মানের সিভি তৈরী  করবো সেই সম্পর্কে আলোচনা করেছি । এখন আমি আপনাদের একটি ভালো মানের সিভি তৈরী করতে যে সব তথ্য দিতে হয় তা নিচে দেখাবো ————-

                                                                         Title :

1. Career Objective :
2. Objective of Career :
3. Educational Background :
4. Internship :
5. Computer Skill :
6. Training :
7. Language Proficiency :
8. Scholarship :
9. Hobbies and Interests :
10. Personal Information :
Date of Birth :
Father :
Mother :
Religion :
Nationality :
Gender :
Marital Status :
Blood group :
Permanent Address :
11. Experience :
12.Reference :
13. Signature & Date:

এই তথ্য সমূহকে বর্ণনা করা হয় নি, কারন সবার নিজস্ব  ব্যক্তিগত আলোচনা সবাই করতে পারবে । আমার লেখাতে কোন ভুল   থাকলে  নিজ গুনে ক্ষমা করবেন । আজ আর নয় ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ভেরিফাই করুন--- *