790-x-90

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন

যারা লেখালেখি করেন তারা জানেন, একটি কলম কতটি গুরুত্বপূর্ন। বাজারে হরেক রকমের কলম আর পেন্সিল পাওয়া যায়। এর মধ্যে থেকে কোনটি আপনার দরকার সেটা কি কখনো ভেবেছেন? পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন করার ক্ষেত্রে অনেক নিয়ম কানুন আছে। অনেক বিষয় মাথায় রাখতে হয়। তার কারন কাজের ভিত্তিতেই কলম ও পেন্সিল বিভিন্ন ধরনের হয়।

কিভাবে আপনার পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন করবেন?

আসুন একে একে আমরা জেনে নেই কিভাবে পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন করা যায়। আছে আপনাদের জন্য কিছু নতুন তথ্য। কাজে লাগবে আশা করছি। প্রথমেই কলম নিয়ে আলাপ করা যাক। আলাপের শেষ দিকে থাকছে পেন্সিল।

লেখার সাইজ আর নিবের উপর ভিত্তি করে কলম নির্বাচন করুনঃ

আপনার লেখার সাইজ কিংবা গতি এই দুটির দিকে লক্ষ্য করুন। লেখা যদি ছোট হয় আর গতিশীল হয় তবে আপনাকে চিকন আর সূক্ষ্ণ নিবের কলম পছন্দ করতে হবে। বল পয়েন্ট কলমের মধ্যে অনেক কলম ই আছে যা সত্যিই অনেক চিকন আর সরু। এদের মধ্যে আপনাকেই নির্বাচন করতে হবে। কোন ব্র্যান্ড আমি এই মুহুর্তে আপনাকে রিকমেন্ড করতে চাই না। অবশ্যই ফাইনার নিব বল পয়েন্ট কলমের বল বা টিপ ০.৭মিলি মিটার হয়ে থাকে।

আর এর বেশি হলে তাকে ওয়াইডার নিব হিসেবে আখ্যায়িত করা যায়। ওয়াইডার নিব আর টিপ এর ব্যাস ১মিলি মিটার হয়। আপনার হাতের লেখার সাইজ যদি কিছুটা মোটা আর বড় হয় তবে মোটা নিব নিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে আপনার অনেক দ্রুত লেখার সুবিধা হবে। কারন চিকন নিব সময়ের সাথে কালি কিছুটা কম ছাড়ে। ছোট লেখার জন্য অনেক কার্যকরি। বড় নিব আর টিপ অনেক বেশি কালি ছাড়তে পারে। লেখা বড় সাইজ নিয়ে গতিশীল হয়।

মনে রাখুন, রোলার বল পয়েন্ট কলমের টিপ সাইজ ০.৫মিলিমিটার থেকে ০.৭মিলিমিটারের হয়। আবার জেল পয়েন্ট কলমের টিপ সাইজও ০.৫মিলিমিটার থেকে ০.৭মিলিমিটারের হয়।

ফাউন্টেইন পেন বা দোয়াত কলম যদি কখনো ট্রাই না করে থাকেন তবে একবার ট্রাই করে দেখতে পারেন। এর অনেক সুবিধার সাথে অসুবিধাও আছে। যে কোন সময় লিক হয়ে যেতে পারে।

দাম দেখে পচন্দের কলম নির্বাচন করুনঃ 

এটা সত্যি যে আপনি চিকন নিব নেন আর মোটা নিব নেন, অথবা যাই নেন না কেন দাম একটা গুরুত্বপুর্ন আলোচ্য বিষয়। বাজারে কল্ম নির্বাচনের ক্ষেত্রে দেখবেন মোটা নিবের কলমের দাম কম। আর কালি এত পচা গন্ধ যুক্ত যে সেই কলম দিয়ে লেখার ইচ্ছাই থাকে না। অন্যদিকে চিকন নিবের কলমের দাম একটু বেশি। তাই পচন্দের কলম নির্বাচন করার আগে দেখে নিন আপনার কলমটি কেমন দামের।

কাজের ধরনের উপর নির্ভর করে কলম নির্বাচন করুনঃ

কি কাজে কলম ব্যবহার করছেন তা আগে নির্ধারন করা উচিৎ। যদি এমন হয় যে আপনি শুধু প্রতিদিনের সাক্ষর কিংবা কিছু নোট লিখার কাজে কলম ব্যবহার করেন তবে সে বিষয় মাথায় রাখুন। কম লিখেন কিংবা বেশির ভাগ কম্পিউটারেই লিখেন যদি তাহলে আপনার জন্য জেল পেন বা শুষ্ক কালির সূক্ষ্ণ নিবের কলম প্রযোয্য হবে।

এছাড়াও আপনি আরো বেশি যাচাই বাচাই করে নিজের পছন্দের একটি কলম অবশ্যই নির্বাচন করতে পারবেন যা আপনার লেখাকে আনন্দময় করে তুলবে।

রিফিল করার সুযোগ আছে কি না দেখে নিনঃ

অনেক কলমেই রিফিল করার সুযোগ থাকে। সেক্ষেত্রে সেটা কেমন সুবিধের নাকি  বিরক্তির তা ভেবে দেখা দরকার। রিফিল করা কলমের ক্ষেত্রে দাম সব সময় বেশি হয়। এজন্য রিফিলের কোয়ালিটি ঠিক আছে কি না তাও দেখুন। পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন করার সময় রিফিলকে অবহেলা করবেন না।

পচন্দের পেন্সিল কিভাবে নির্বাচন করবেন?

যারা পেন্সিল নিয়ে কাজ করেন তারা পেন্সিলের মর্ম বোঝেন। তারপরেও আমার আপনার মত আনাড়ি যারা তাদের জন্য পেন্সিল শুধু পেন্সিলই। আসলেই কিন্তু এমন নয়। বাজারেই আপনি আট দশ রকমের পেন্সিল পাবেন। পেন্সিলের নিব নিয়ে চিন্তা করতে হয় না। কারন ইচ্ছে মত সূক্ষ্ণ করে তোলা যায়। অথচ দেখুন গ্রাফাইটের দ্বারা তৈরি এই পেন্সিলে আছে নানা রকম ফের। পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন নির্বাচনে সতর্কতাও জরুরী। জানুন কিভাবে আপনি আপনার পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন নির্বাচন করবেন।

শক্ত নিবের পেন্সিল যা হালকা কালার দেয়, আবার আছে নরম আর গাড় কালো নিবের পেন্সিল যা ডার্ক শেড দেয়। এসবের ভিত্তিতে বাজারে আছে H, B, HB পেন্সিল। এইচ দিয়ে শুরু করে যে পেন্সিল গুলো আছে সেগুলোর নিব শক্ত হয়, আর কালির দক্ষতা হয় হালকা বা লাইটার। বি দিয়ে যেগুলো পেন্সিল আছে সেগুলোর নিব নরম আর কালির দক্ষতা হয় গাড় বা ডার্কার। এছাড়াও এইসবি কম্বাইন্ড পেন্সিল হচ্ছে দুটোর মাঝামাঝি একটা রকম।

H1, H2, H3….H10 পর্যন্ত থাকতে পারে। যত বেশি নাম্বার কাউন্ট এর পেন্সিল এইচ দিয়ে ততই বেশি হালকা আর শক্ত নিব থাকে।

B1, B2, B3….B10 পর্যন্ত থাকতে পারে। একই ভাবে যত বেশি কাউন্ট এর পেন্সিল বি দিয়ে ততই বেশি গাড় আর নরম নিব থাকে।

ব্যবহারের উপর ভিত্তি করে এসব পেন্সিল পচন্দ করা উচিৎ। যদি শুধু হাতের লেখার জন্য বা বাচ্ছাদের জন্য পেন্সিল দরকার হয় তবে HB অথবা 2B ব্যাবহার করা যেতে পারে।

 

এছাড়াও অনেক কারনে আপনি পচন্দের কলম ও পেন্সিল নির্বাচন না করে পারবেন না। সেগুলো যদি আপনি বের করতে পারেন আমাকে জানান। আমি হয়ত কিছু সাহায্য করতে পারব।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ভেরিফাই করুন--- *