790-x-90

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

আমাদের দেশের বেশির ভাগ মানুষ চাকুরীর সন্ধান করেন। প্রায় প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চাকুরী খোঁজা নিয়ে সময় দেন। বাংলাদেশে অনলাইন ভিত্তিক পোর্টালগুলো যা করেছে তা হলো খুব সহজে চাকুরীর বিজ্ঞাপন প্রকাশের সুযোগ করে দিয়েছে। আর এজন্য যারা জব সিকার(চাকুরী প্রার্থী) তারাও খুব সহজে খুজে পান দরকারী কোন চাকুরীর খবর। আবেদন করেন হাজারের চেয়ে বেশি আবেদনকারী।

তবে কিভাবে আপনি এত মানুষের মাঝে চাকুরীটা পাবেন? কিভাবে চাকুরীর জন্য আবেদন করবেন? এই কাজটি খুব সহজ নয়। আজকাল অনেকেই জানেন কিভাবে চাকুরীদাতার কাছে নিজেকে তুলে ধরতে হয়। তাই নয়ছয় পুরোনো ধাঁচে এখন আর মেলেনা চাকুরী। আপনি হয়ত অনেক কাজ জানেন, অনেক কিছুই বোঝেন, কিন্তু আপনি যদি চাকুরীদাতার মনঃপুত না হন তবে কোনোদিন পাবেন না চাকুরী।

আজ আমি আপনাদেরকে জানাব কিভাবে আপনি চাকুরীর জন্য আবেদন করবেন?

আপনি হয়ত ভাবছেন এটা আর এমন কী জিনিস। একটা আবেদনপত্র আর বায়োডাটা নিয়ে গেলেই বুঝি চাকুরীটা হয়ে যাবে। কখনোই এমন নয়। ধরুন কোন এক কোম্পানীতে রিজিওনাল ম্যানেজার পদের জন্য বিজ্ঞাপন প্রচার করা হলো। কোম্পানী যদি টপ রেটেড হয় তবে কম করে হলেও তিন হাজার আবেদন পড়বে। আর যদি নর্মাল হয় তাহলে এক হাজার আবেদন পড়ার সম্ভাবনা থাকে। কখনো আরো কম হয়। সেই হিসেবে আপনি কত জন মানুষের সাথে লড়ছেন? ভেবেছেন?

মাথায় হাত দিয়ে বসে পড়বেন না। এমন হয়, আর এত জনের মধ্যে একজন তো অবশ্যই জিতবেন। তিনি কেন জিতবেন বলে আপনি মনে করেন? এবার ভাবুন আপনি কি করলে জিতে যেতে পারেন।

এই বিষয়ে আমি বলব আপনি আবেদন করুন এমন ভাবে যা আপনি জানেন। তার ভিত্তিতে। রুচির পরিচয়  দিন। ভাল কিছু দেখান। নিজেকে তুলে ধরুন আবেদনপত্রে।

একটি কভার লেটার লিখুন যা আপনার সম্পর্কের অনেক কিছু তুলে ধরবে।

একটি সুন্দর CV তৈরি করুন। আদর্শ একটি নমুনা দিলাম। ক্লিক করুন এখানে ..