790-x-90

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

কিভাবে  থানায় জি ডি (জেনারেল ডায়েরী)  করবেন?

আমাদের জীবনে নানাবিধ ঘটনা ঘটে। অনেক সময় আমরা মুল্যবান অনেক জিনিস কাগজপত্র কিংবা সম্পদ টাকা পয়সা ইত্যাদি হারিয়ে ফেলি। কিংবা অনেক সময় আমাদের স্বাভাবিক জীবন যাপনে অনেক ভয়ভীতির উদ্রেক হয়। অনেকেই অলৌকিক বিষয়ে মাথা ঘামান, কিংবা ভয় পান। এসব খুটিনাটি বিষয়ে অবশ্যই আপনি পেতে পারেন আইন শৃংখ্যলা বাহিনীর সহায়তা। আর এ জন্যই আইন শৃংখ্যলা বাহিনীর প্রাথমিক পর্যায়ের পদক্ষেপ অনুযায়ী জি ডি করে পুলিশের কর্তব্যরত অফিসারকে অবহিত করতে হয়। যার ফলে আইন শৃংখ্যলা বাহিনীর সাধ্যের মধ্যে কিংবা আয়ত্বের মধ্যে থাকলে সমুহ বিপদ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

এছাড়া নাগরিক জীবনে সকল স্বাভাবিক ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী হিসাবে কোন প্রমান কিংবা নথি সরকারি কিংবা বেসরকারি দাপ্তরিক কাজে প্রদর্শনের ক্ষেত্রে এই জি ডি ( সাধারন ডায়েরী) অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন।
জি ডি করার নিয়মঃ

এই কাজে তেমন কোন নিয়ম ফলো করতে হয় না, ঘটনা ঘটার কিংবা সম্ভাব্য ঘটনার ইঙ্গিত পাবার সাথে সাথেই পার্শ্ববর্তী কোন থানায় নিজে সশরীরে গিয়ে ঘটনার বিবরন কর্তব্যরত পুলিশ পরিদর্শক কে লিখিত ভাবে জানাতে হয়। এক্ষেত্রে একটি ফর্ম পুরন করেও সমস্যা তুলে ধরা যেতে পারে। তবে লিখিত অথবা কোন ফর্ম পুরন করে হলেও সমস্যা কিংবা তার বিবরন পেশ করে পুলিশ পরিদর্শকের নথিতে অন্তর্ভুক্ত করার পর একটি নম্বর পাওয়া যায় যাকে বলা হয় জি ডি নম্বর। পরবর্তীতে  এই নাম্বার দেখিয়ে যে কোন অনাকাংখ্যিত সমস্যাও এড়ানো যায়।

 

পরিশেষঃ একটি জি ডি খুব বেশি কষ্টকর কোন ব্যপার নয়, তবে এটি না করা হলে অনেক সময়েই বিপদে পড়তে হয়। যেমন হারিয়ে যাওয়া, হুমকি, কিংবা অন্য যে কোন ব্যাপার যা পরবর্তী অন্যান্য ঘটনাকে প্রভাবিত করতে পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ভেরিফাই করুন--- *