790-x-90

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Personal_website

একটা সময় ছিল যখন একজন মানুষের একটা ইমেইল এড্রেস আর একটি ফোন নাম্বার থাকলেই চলত। যোগাযোগের জন্য পর্যাপ্ত ছিল। কিছু সময়ের পর দেখা গেল এই ইমেইল আর ফোন নম্বর দিয়ে খুব বেশি হলে যোগাযোগ করা যায় আর তেমন কিছু করা যায় না। যেমন আপনার নিজের কথা কাউকে জানানো, কিংবা কোন মুহুর্তের কথা ফ্যানদের মাঝে শেয়ার করা। অথবা ডাটা শেয়ার করা ইত্যাদি,  ইত্যাদি। তারপরেই প্রয়োজন পড়ে ব্যক্তিগত প্রোফাই। সিভি, স্লাইড শেয়ার ইত্যাদিও আসে। এর থেকেই শুরু হয় ওয়েবসাইট, ব্যাক্তিগত ওয়েবসাইট।

যেকোন মানুষের পরিচিত একটা জগত থাকে। সেই এরিয়ার উপর নির্ভর করে তাকে চলতে হয়। কিন্তু আপনি এই গ্লোবালাইজেশনের যুগে কেন শুধু মাত্র সেই পরিচিত এরিয়াতেই পড়ে থাকবেন? আপনি কেন নিজের জন্য এমন একটি ফ্ল্যাটফর্ম রাখবেন না যেখানে আপনি মানুষদের কিছু জানাতে পারেন, কিংবা জানতে চাইতে পারেন। এমন কেন হবে না যে কোন একটি সার্চ ইঞ্জিনে আপনাকে খুজলেই পেয়ে যাবে ফোন, ইমেইল করার অপশন? এসব কারনেই একটি ওয়েবসাইট দরকার। অনেকেই হয়ত দেখেছেন যে বেশিরভাগ মানুষের যাদের ভাল পরিচিতি আছে তারা নিজের জন্য ওয়েবসাইট রেখেছেন। বিভিন্ন ইভেন্ট শেয়ার করে অন্য আরো ফ্যান তৈরী করছেন। অথচ সাধারন মানুষেরা কেবল ফেইসবুকের উপর নির্ভরশীল। ফেইসবুকের মজা আলাদা। সেখানে সামাজিক ভাবে অন্যের সাথে ভাবের বিনিময় করা যায়। কিন্তু সেই ফেইসবুকে যা কিছু আছে তার সবকিছুই লিমিটেড। সেই লিমিটেড পরিসরে ফেইসবুক যা চাইবে তাই করতে হবে। অনেকটা সেরকম যেমন করে নাচতে বলা হয় তেমন করেই নাচা।

একটি সাধারন ব্যক্তি পর্যায়ের ওয়েবসাইট নিতে কত টাকার প্রয়োজন? খুব বেশি দরকার নয়। কিছু টেকনিক গ্রহন করলে অল্প টাকাতেই করা যায়। তবে সবকিছু নির্ভর করে আপনি কেমন ফাংশনাল ওয়েবসাইট চাচ্ছেন। ফ্রী ওয়েবসাইট নিতে পারেন। এরজন্য আছে ব্লগার ডট কম এবং ওয়ার্ডপ্রেস ডট কম। কিন্তু সেখানে একপর্যায়ে কিছু লিমিটেশন আছে। সবচে’ বড় সুবিধা হল এসব সাইটে যে কোন কিছুই প্রকাশ করা যায়। প্রকাশের উপর তেমন কোন বাধা নেই। এবং আপনি অনেক সাইট তৈরী করে ফেলতে পারবেন। তারপরেও এসব সাইটে নিজস্ব স্বকীয়তা থাকে না। আপনি সেই সাইটের মালিক বলা যাবে না। সাইটের মালিক হবার জন্যে দরকার সেলফ হোষ্টেড সাইট।

আসুন জেনে নিই একটি ওয়েবসাইট তৈরী করতে কী কী দরকার ?

  • একটি নাম অথবা ইউ আর এল [A URL is one type of Uniform Resource Identifier (URI)]. যেমন- kivabe.info
  • হোষ্টিং স্পেস বা ফাইল রাখার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা। এর জন্য ২৪ ঘন্টা ক্লাউড সার্ভার হিসেবে কাজ করে।
  • ওয়েব পেইজ। অর্থাৎ যা আপনি দেখাতে চান। একটি নোট প্যাডে <html> <h2> Hello World</h2> </html>  লিখুন। ফাইলের নাম index.html সেইভ করুন। সেই ফাইল দিয়ে ব্রাউজ করলে একটি ওয়েবসাইট হবে। যার আউটপুট হচ্ছে – Hello World. এক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের কোডিং আছে যার সাহায্যে অনেক আধুনীক সাইট তৈরী হচ্ছে প্রতিদিন।

একটি ওয়েবসাইট তৈরী করতে মোট খরচের বিবরণঃ

একটি ডোমেইন নেম/ইউ আর এল নিতে ১০০০টাকা থেকে ১২০০টাকা প্রতি বছর ফি দিতে হয়। একটি হোষ্টিং যদি ১জিবি স্পেসের হয় তবে তাও বিভিন্ন মুল্যের পাওয়া যায়। মোটামুটি ব্যান্ড উইথের জন্য ১০০০টাকা থেকে ১০০০০টাকা নিতে পারে। ডিজাইন আপনি নিজেও করতে পারেন। খুব সহজেই বিভিন্ন টুলস ব্যবহার করে ডিজাইন করতে পারেন নিজের ওয়েবসাইট।

সবসময় ডট কম   আপনাকে দিচ্ছে দারুন এক অফার। আপনি মাত্র তিন হাজার(৩০০০) টাকায় করে নিতে পারবেন একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট। এর জন্য বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন – www.sobshomoy.com/contact