আমরা সবাই মোবাইল ফোনেই হোয়াটস অ্যাপ ব্যাবহার করি। তার কারন হচ্ছে অনেকেই আমরা মোবাইলে সবকিছু পেতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করি। ভাইবার  এর যেমন ডেস্কটপ এপ আছে হোয়াটস অ্যাপেরও আছে। আপনি অবশ্যই সেই অ্যাপ উইন্ডোজ বা ম্যাক এ ইনস্টল করে কাজ করতে পারবেন।  কিন্তু আপনি জানেন কম্পিউটারে হোয়াটস অ্যাপ ইনস্টল না করেই আপনি ওয়েবে  হোয়াটস অ্যাপ  দিয়ে কাজ করতে পারবেন।

এজন্য আপনাকে কোন বাড়তি ঝামেলার সম্মুক্ষীন হতে হবে না। আপনার কম্পিউটারের ব্রাউজার লাগবে। আর সেখানে  ওয়েবে  হোয়াটস অ্যাপ ব্রাউজ করবেন। এটাই হচ্ছে শুরুর কাজ। যে লিংক এ পাওয়া যাবে তা হলো-https://web.whatsapp.com/ এখানে আপনি নিচের মত একটি উইন্ডো পাবেন। ওয়েব হোয়াট অ্যাপ

আপনার মোবাইল ফোনের হোয়াটস অ্যাপ টি এবার চালু করুন। চালু করার পর মোবাইল মেন্যু থেকে নিচের ছবির মত সিলেক্ট করুন-

তার পর নিচের ছবির মত করে WhatsApp Web মেন্যু টাচ করুন। আপনি এবার একটি স্ক্যানিং স্ক্রীন পাবেন।

 

হ্যাঁ নিচের স্ক্রীনটি হচ্ছে কিউ আর কোড স্ক্যানার। আপনার ডেস্কটপে যে কোড টি দেখাচ্ছে তা সঠিকভাবে পুরো স্ক্যান করুন। আমি অর্ধেক দেখিয়েছি কারন পুরো দেখানোর আগেই তা স্ক্যানিং হয়ে যায়। ছবি তোলার সুযোগই পাওয়া যায় না। 

স্ক্যান হয়ে গেলে এক সেকেন্ডের মধ্যেই আপনার প্রোফাইল যা ফোনে ছিলো তা ডেস্কটপে ওপেন হবে। সকল কন্টাক্ট লিষ্ট সহ। আপনি সব কিছু ই দেখতে পাবেন। আগের যত সব চ্যাট , কল হিষ্ট্রি, অডিও, ছবি ইত্যাদি।

নিচের স্ক্রীনে আমি কিছু অংশ বাদ দিয়ে দিয়েছি। আশা করছি আপনি মূল ব্যাপারটি ধরতে পেরেছেন। এই সুবিধার অনেক ব্যবহার রয়েছে। আপনি কিভাবে এর ব্যবহার করছেন তা জানাতে পারেন। 

আপাতত আমি একে ব্যাবহার করছি যখন ফোনে চার্জ থাকে না তখন যেন সবার সাথে কানেক্ট থাকা যায় তার জন্য। হোয়াটস অ্যাপ খুবই ভাল একটি ম্যাসেঞ্জার যা চ্যাটিং এর জন্য কিংবা কল করার জন্য অনেক ভাল। এর ভাল কোয়ালিটি আছে। এখন পর্যন্ত এটাকে ফ্রী হিসেবে পাওয়া যাচ্ছে।

ওয়েব ভার্সনে ব্যবহার করার আরেকটি সুবিধা হলো, একই তথ্য মোবাইলে এবং ডেস্কটপে সিঙ্ক্রোনাইজড হয়ে যাচ্ছে। তাতে ফাইল পাঠানোর দরকার হচ্ছে না। এমনিতেই দু’জায়গায় জমা হয়ে যাচ্ছে। ওয়েবে হোয়াটস অ্যাপ ব্যাবহার করে আপনিও দেখতে পারেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ভেরিফাই করুন--- *