অচেনাদের সাথে প্রেম

অচেনাদের সাথে প্রেম বিষয়ে কিছু বলার আগে সে বিষয়ে আমার কিছু অভিজ্ঞতার কথা বলা দরকার। কিছুদিন আগে আমি একটি বই পড়েছিলাম। বইটি শুরু করেছিলাম অনিচ্ছা নিয়ে। কারন ফ্লার্ট নিয়ে বই ভাল হয় কিভাবে? ফ্লার্টিং এর সাথে জড়িয়ে গেছে অনেক নোংরামো ব্যাপারস্যাপার।  কিন্তু কিছুদুর পড়ার পর দেখতে পেলাম লেখিকা ফ্লার্টিং নিয়ে যা বলেছেন তা আসলে কিভাবে অচেনাদের সাথে প্রেম করবেন সে সম্পর্কে। শেষতক আমি পুরো বইটাই পড়লাম। দারুন! জানার আছে অনেক কিছুই। কিভাবে অচেনাদের সাথে প্রেম করবেন তা নিয়েই আজ আমি আপনাদের জানাবো। কিছু ব্যাখ্যা সেই বই থেকেও দেব। আরো থাকছে কিছু সোর্স রেফারেন্স।

আরো একটা ব্যাপার শুরুতেই বলি। আমাদের সাথে প্রতিদিনই নতুন কারো না কারো সাথে দেখা হয়। অনেকভাবেই দেখা হতে পারে নতুন নতুন মানুষের। নতুনভাবে কারো সাথে দেখা হলেই প্রেম বা পরিনতির কথা চিন্তা করাটাই হচ্ছে বোকামি।  যে কোন মানুষের সাথেই আপনার যে কোন রকম ভাল সমপর্ক হতে পারে। এরকমটি প্রথম দেখায়ও হতে পারে। আবার অনেক পরেও হতে পারে। এর জন্য প্রেম কিংবা অন্যান্য ব্যপার মাথায় রাখা কিংবা সেরকম ভাবাই ঠিক নয়। এজন্য আমরা মূল আলোচনা করতে চাচ্ছি কিভাবে অচেনাদের সাথে ভাল সম্পর্ক করা যায়? কিভাবে অচেনাদের সাথে প্রেম করবেন তাও থাকছে আলোচনার শেষাংশে।

প্রথম দেখা হলে অচেনা মানুষের সাথে কি করবেন?

সাধারন গড়পড়তা মানুষের মধ্যে একটা বিশেষ প্রবনতা আছে। তারা কাউকে দেখলেই অনেক কিছু ভেবে নেয়। ভাল মন্দ শত মন্তব্য করতেও ভুলে যায় না। কেউ চিকন হলে প্রথম মন্তব্য চলে আসে মানুষটা নেশা খোর! কোন মেয়েকে দেখলেই যদি সানি লিওন ভেবে ফেলে তবে কার কি করার আছে?  সবাই তো এক রকম নয়। তাই বলে না জেনে কারো সম্পর্কেই কোন ধারনা পোষন করা উচিৎ নয়।  শুরু হতে পারে ভাল কথা নিয়ে আলাপ হতে পারে। কারো পোশাক কিংবা বহিঃদৃশ্য দেখে মন্তব্য করা কিংবা তাকে অবহেলা করার ফলাফল খুবই খারাপ হয়। শেখসাদী(রঃ) এর একটা গল্প সবার মনে আছে নিশ্চয়ই? কোন এক রাজ দরবারে তিনি জীর্ন পোশাকে গেলেন আর ঢুকতেই পারলেন না। অথচ দামী পোশাকে তাকে অনেক আদর যত্ন করে খাবার দেওয়া হয়। সেই খাবার তিনি পোশাককেই খাইয়েছিলেন। প্রথম দেখা হলে কাউকেই ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। কথা বলে কাজ করে তবেই মন্তব্য করুন।অচেনাদের সাথে প্রেম

অচেনাদের সাথে প্রেম করা যাবে কি না?

মুল ব্যাপার হচ্ছে মানুষ অচেনা থাকে না। তারা এক সময় চেনা মানুষে পরিনত হয়। কিভাবে অচেনা মানুষকে চেনা মানুষে পরিনত করবেন তার জন্য আলাদা করে পরিকল্পনা করতে হয় না। শুধু আপনার নিজস্ব কর্ম আর আচরন আপনাকে অচেনা মানুষের সাথেও চেনা করে দিতে পারে। তাই অচেনা মানুষকে চিনতে যত দিন লাগে তা লাগুক। তবু না চিনে তার প্রেমে পরা যাবে না। প্রেম অত সস্তা না। প্রেম পিরিতি অনেক দামী, একটা জীবনের দাম যত প্রেমের দাম তার কাছাকাছি। চেনা মানুষের সাথে প্রেম করেই মানুষের জীবন শান্ত হয় না, শান্তি মেলে না। অচেনা মানুষের সাথে প্রেম করা তো আরো অযৌক্তিক।

অচেনাদের সাথে প্রেম করার আগে কয়েকটি বিবেচ্য দিক

যদি আপনি ধরে নেন যে অচেনা মানুষটিকে আপনি চেনা মানুষের পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন তবে এবার আপনার ভাববার সময়। তাকে ভাল লাগলে আপনি জানাতে পারেন। এরকম একটা সম্পর্ক হতেই হবে সেরকম কিছু নয়। তবু যে কোন পক্ষের কেউ যদি মনে ভয় ভীতি রেখে দেন তা দুজনেরই অশান্তির কারন হতে পারে। সরাসরি বলা না গেলে লিখে জানান। তবু জানিয়ে দিন। অচেনা মানুষের সাথে প্রেম করবেন সত্যিই। কিন্তু এক সময়ের অচেনা মানুষ আজ আপনার খুব চেনা। তাকে আপনি অনেক জানেন। তার সাথে অবশ্যই আপনি সময় কাটিয়েছেন। সব মিলিয়ে আপনি নিজেই জানেন সেই অচেনা মানুষটি আজ আপনার জন্য কতটা যোগ্য।

মানুষের কতগুলো সাধারন দিক

সাধারন মানুষের অনেক দিক থাকে। ভাল দিক, খারাপ দিক। এছাড়াও থাকে অপরাধী দিক। সব মানুষের ভেতরেই অপরাধ করার মত একটা প্রবনতা থাকে। এর পরিমান কখনো বেশি হয় কখনো হয় অনেক কম। কম করে হলেও অপরাধ প্রবনতা আসলেই ক্ষতিকর। এছাড়াও মানুষের আরো একটি দিক থাকে, এর নাম সুযোগ সন্ধ্যানী প্রবনতা।

আরো আছে, উপকারি দিক। এর কারনে সাধারন মানুষ অন্য সাধারন মানুষের অনেক উপকার করে। সাধারন মানুষ যতই অপরাধী হয়ে থাকুক কতখনো না কখনো সে উপকারী হতে পারে।

অচেনা মানুষের সাথে প্রেম করা কিংবা জীবন জড়ানো কিংবা বন্ধুত্ব করা এর কোনটিই আসলে খারাপ হয় না। সব কিছুই আসলে মানুষে মানুষে নিয়মিত ঘটনা প্রবাহের চালচিত্র। তবু এ সব কিছু বিজ্ঞতার চোখ দিয়ে পরখ করা উচিৎ। অন্যকে ভুল না বুঝে শুরুটা সুন্দর করাই শ্রেয়। হট, বাটপার, চোর, ধান্দাবাজ, সুবিধাবাদি আর খারাপ পেশার মানুষের কোন অভাব নেই। তবু জীবন জাপনের বেলায় শুরুর দিন আপনি ধরে নেন শুধু একজন অচেনা মানুষ হিসেবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ভেরিফাই করুন--- *